Monday, April 15, 2024
বাড়িখবরশীর্ষ সংবাদসাড়ে তিন বছরের ভালবাসাকে প্রেমমিকা প্রত্যাখ্যান করাতে সেই ভালোবাসা ফিরে পেতে ওই...

সাড়ে তিন বছরের ভালবাসাকে প্রেমমিকা প্রত্যাখ্যান করাতে সেই ভালোবাসা ফিরে পেতে ওই প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধরনায় বসলো প্রেমিক।

খোয়াই প্রতিনিধি ২৯ শে সেপ্টেম্বর….এক প্রেমিক যুগল সাড়ে তিন বছর দাপিয়ে প্রেম করার পর অবশেষে প্রেমিকা তার প্রেমিক কে ছেড়ে দিল।তাই শুক্রবার সকাল ১১ টা নাগাদ সাড়ে তিন বছরের ভালবাসাকে ফিরিয়ে দেবার দাবি নিয়ে ওই প্রেমিক তার প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধরনায় বসলো।এই বিষয়ে ছেলেটির সাথে কথা বললে জানা যায় ছেলেটির নাম তপু দেব বয়স ২৩ পিতা রথীন্দ্র দেব বাড়ির খোয়াই থানাধীন পহরমুড়া এলাকার মজুমদার টিলার বাসিন্দা পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি এবং পেটে বিদ্যা ক্লাস নাইন পর্যন্ত।আজ থেকে প্রায় চার বছর আগে ওই এলাকাতে একটি বিবাহের অনুষ্ঠানের পরিচয় হয়েছিল খোয়াই দুর্গানগর কালীবাড়ি রোড এলাকার বাসিন্দা সমীর দেবের মেয়ে স্নিগ্ধা দেবের সাথে।এরপর স্নিগ্ধ দেব এবং তপু দেবের মধ্যে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে ওঠে গত সাড়ে তিন বছর ধরে তখন স্নিগ্ধা দেব একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী ছিল বর্তমানে খোয়াই কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।উভয়ই প্রেমে ডুবে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করেছে এবং বিভিন্নভাবে ফটো তুলেছে অন্তরঙ্গভাবে।সেই অন্তরঙ্গের কিছু ছবি ফ্লেক্স বানিয়ে শুক্রবার সকালে ছেলেটি মেয়েটির বাড়ির সামনে ধরনায় বসে।এ বিষয়ে ছেলেটি আরো জানান হঠাৎ করে নাকি প্রেমিকা স্নিগ্ধা দেব প্রেমিক তপু দেব কে ছেড়ে দেয় অর্থাৎ তাদের ভালবাসা সম্পর্ক নষ্ট করে ফেলে।এরপর প্রেমিক মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে মেয়েটির পরিবারের সাথে কথা বলে তখন মেয়ের মা ছেলেটিকে জানান তাদের মেয়ে বি এ পাস না করা পর্যন্ত তাদের মেয়েকে বিয়ে দেবে না তাতে প্রেমিক মেয়ের পরিবারের এই সিদ্ধান্ত রাজি হয়ে যায় যে মেয়েটি আগে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত লাভ করুক তারপর না হয় বিয়ে করবে ছেলেটি।এর পর মেয়ের পরিবার থেকে ছেলেটিকে বুঝিয়ে সুজিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।এর কিছুদিন পর থেকে মেয়েটি ছেলেটির সাথে সম্পর্ক নষ্ট করে ফেলে ভালোবাসার সম্পর্ক টিকে আর এগিয়ে নিতে রাজি নয়।সবকিছু বন্ধ দেখে অবশেষে ছেলেটি মেয়েটির বৌদিকে ফোন করলে মেয়ের বৌদি ছেলেটিকে জানায় মেয়েটি বাড়িতে নেই,আসিনি এইসব কথা বলে ছেলেটিকে বোকা বানাচ্ছিল আর এই ভাবেই চলছিল গত এক মাস ধরে। কোনভাবেই ছেলেটি মেয়েটির সাথে যোগাযোগ করতে পারছিল না , না পারছিলো মেয়েটির মুখোমুখি হয়ে কথা বলতে না হচ্ছিল ফোনের মাধ্যমে কোন কথা।সবদিক দিয়ে রাস্তা বন্ধ দেখতে পেয়ে অবশেষ শুক্রবার সকালে প্রেমিক তপু দেব তার প্রেমিকা স্নিগ্ধা দেবের সাথে তোলা কিছু অন্তরঙ্গ ছবি ফ্লেক্স বানিয়ে এবং গলার মধ্যে ফেস্টুন ঝুলিয়ে উভয়ের মধ্যে ভালোবাসা ছিল সেই প্রমাণ করতে দুর্গানগর কালীবাড়ি রোড স্থিত মেয়েটির বাড়ির সামনে ধরনায় বসে।প্রেমিক তপু দেবের বক্তব্য আমার সাড়ে তিন বছরের ভালবাসা ফিরিয়ে দাও।এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সমস্ত এলাকাতে গুঞ্জন শুরু হয়ে যায় এবং গলির রাস্তাতে প্রচুর লোকের ভিড় জমায়েত হয় কি ঘটছে তা দেখতে।অন্যদিকে এলাকা সূত্রে জানা যায় স্নিগ্ধা দেব তার ভালোবাসার মানুষ তপু দেবকে ছেড়ে দেওয়ার পেছনে কারণ রয়েছে সেটি হল একে তো ছেলেটি মেয়ের তুলনায় কম শিক্ষিত পাশা পাশি মেয়েটি অন্য আরেকটি চাকুরী রত এক ছেলের সাথে নাকি গোপনে প্রেম করছে যা তপু জানেনা সেই কারণে তপুর সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারছে না পাশাপাশি এলাকাবাসী এও বলে এই ধরনের মেয়ের পেছনে ঘুরে ছেলেটি তার জীবন নষ্ট করছে কারণ ভালোবাসার লোভ দেখিয়েছে এখন অন্য কারো সাথে প্রেম করছে। শেষে বিষয়টি কে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে খোয়াই থানাতে জানানো হলে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে ফ্ল্যাগ ফেস্টুন সহ প্রেমিক তপু দেব কে থানায় তুলে নিয়ে যায়।এবং থানায় নিয়ে গিয়ে প্রেমিক তপু দেব কে তল্লাশি করলে তার প্যান্টের পকেট থেকে একটি কিপ্যাড মোবাইল এবং একটি বিষের কৌটো উদ্ধার করে। এ বিষয়ে পুলিশ বুঝতে পারে যদি প্রেমিকার ভালোবাসা ফিরে না পেলে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারত ।অবশেষে থানার পক্ষ থেকে উভয় পরিবারকে ডাকা হবে হবে যাতে করে আলোচনার মাধ্যমে ঘটনাটিকে মিট মাট করা যায় ।তবে এই ঘটনা প্রকাশ হতেই খোয়াই শহর জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য