Thursday, May 30, 2024
বাড়িখবরশীর্ষ সংবাদবিগত কয়েক মাস ধরে খোয়াই জেলা হাসপাতালে চলছে ব্যাপক রক্তের সংকট প্রাণের...

বিগত কয়েক মাস ধরে খোয়াই জেলা হাসপাতালে চলছে ব্যাপক রক্তের সংকট প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন ডাইলোসিস এবং মুমূর্ষু রোগীরা কর্তৃপক্ষ উদাসীন।

খোয়াই প্রতিনিধি ৬ই মে……সারা রাজ্যের সাথে পাল্লা দিয়ে খোয়াই জেলা হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকেও চলছে রক্তশূন্যতা। রক্তের অভাবে বিভিন্ন রোগীদের চিকিৎসায় ব্যাঘাত ঘটছে । বর্তমানে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে দিয়ে পৌঁছেছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মুমূর্ষু রোগীদের চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা ও জেলা ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষ থেকে রক্তের জন্য আগরতলা কেন্দ্রীয় ব্লাড ব্যাংকে প্রতিনিয়ত রক্তের জন্য আবেদন জানাতে হচ্ছে। রক্তের সরবরাহ স্বাভাবিক না থাকলে বেশ কছু রোগীকে সুস্থ করে তোলা মুশকিল হয়ে পড়তে পারে বলে খোয়াই জেলা হাসপাতাল সূত্রে জানা যায় । এই সত্যতাকে উপলব্ধি করতে গিয়েই অতি দ্রুত জেলা হাসপাতালের স্বাস্থ্য আধিকারিক খোয়াই জেলার অন্তর্গত বিভিন্ন সরকারি দপ্তর, এনজিও, পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীকে স্বেচ্ছায় রক্তদান করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট এন.জি.ও , সামাজিক সংগঠন কিংবা সাধারণ অথবা পুলিশ প্রশাসন থেকে রক্তদানের জন্য সহমত হলেই জেলা হাসপাতাল থেকে স্বাস্থ্য কর্মীদের পাঠিয়ে রক্ত সংগ্রহ ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানা যায়। এখানে উল্লেখ্য রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অধিকর্তা অফিসে রক্ত সংগ্রহ করার বিষয়ে পৃথক বিভাগ রয়েছে। হাসপাতালে রক্তের আকাল নিয়ে তাদের মতামত জানতে চাওয়া হলে এক আধিকারিক জানান, শুধু খোয়াই নয়, গোটা রাজ্যেই হাসপাতালগুলোতে রক্তের সংকট দেখা দিয়েছে। আগরতলার, জিবি, আই জিএম হাসপাতাল, এমনকি হাঁপানিয়া স্থিত ত্রিপুরা মেডিকেল কলেজেও একই হাল। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অধিকর্তার উদ্যোগে রক্তের আকাল মেটাতে বিভিন্ন দপ্তর, ক্লাব, সামাজিক সংগঠন এবং বিভিন্ন সংস্থাগুলোকে রক্তদান শিবির করার জন্য প্রতিনিয়ত চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু রক্তের জোগান পাওয়া যাচ্ছে না। স্বাভাবিকভাবেই সমস্যা গভীর থেকে গভীরতম হচ্ছে। কিন্তু রক্ত সংকটের বিষয়টি নিয়ে এখন আর আগের মতো কোন উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। স্বাস্থ্য দপ্তরের এক আধিকারিক জানিয়েছে, একটা সময় ছিল যে রাজ্যে রক্তদানের বিষয়টি উৎসবের চেহারা নিত। আর আজকাল রক্তদান নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও কোন ধরনের হেল দুল লক্ষ্য করা যায় না। নেতাদের একটা বড় অংশ ব্যস্ত নিজেদের লাভ,ক্ষতি অংকের হিসেব নিয়ে। অন্যদিকে ব্যস্ত মন্ত্রী আমলাদের তোষামোদী করাতে ।শুধু খোয়াই জেলা হাসপাতাল নয় গোটা রাজ্যেই রক্তশূন্যতা দেখা যাচ্ছে । এই দিকে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরে খবর দিলেও তাদের কিছুই যায় আসে না। কর্তব্যরত এক আধিকারিক এই বিষয়ে জানান এই মূহুর্তে রাজ্যের কত শতাংশ মানুষ রক্তাল্পতায় ভূগছে, রক্তাল্পতার কারণে কত শিশুর মৃত্যু হচ্ছে প্রসবকালে, বাড়িতে প্রসবকালে কত সংখ্যক মায়ের মৃত্যু হচ্ছে তার কোন হিসাব নেই। তাছাড়া কত সংখ্যক লোক রক্তদানের যোগ্য রয়েছে সেই বিষয়েও সঠিক সমীক্ষা হওয়া এবং ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরী কিন্তু তা করা হচ্ছে না। যদি সেই সমীক্ষাটি করা হতো তাহলে তার ভিত্তিতে রক্তশূন্যতার সমস্যাটা অনেকটা ক্ষেত্রে সমাধান করা সম্ভব হত।কিন্তু কথাই বলে না কার গোয়ালে কে দেবে ধোঁয়া বর্তমানে পরিস্থিতিটা তেমনই দাঁড়িয়েছে

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য