Wednesday, July 24, 2024
বাড়িখবররাজ্যসর্বদাই জনসেবায় সমর্পিত প্রিয় সুনুদা চিরকাল বেঁচে থাকবেন আমাদের সকলের হৃদয়ে -...

সর্বদাই জনসেবায় সমর্পিত প্রিয় সুনুদা চিরকাল বেঁচে থাকবেন আমাদের সকলের হৃদয়ে – মুখ্যমন্ত্রী

ভারতীয় জনতা পার্টির উদ্যোগে প্রয়াত বিধায়ক সুরজিৎ দত্তের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে মঙ্গলবার রবীন্দ্রভবনে।অনুষ্ঠানে প্রয়াত জননেতার স্মৃতিচারন করে বক্তাগন এক বাক্যে স্বীকার করেছেন, তিনি শুধুমাত্র রামনগরের নয়, গোটা রাজ্যের প্রাণপ্রিয় মানুষ ছিলেন। তিনি সুনুদা হয়েই রাজ্যবাসীর হৃদয়ে অমর হয়ে থাকবেন । গত ২৬ ডিসেম্বর কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে প্রয়াত হন প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিধায়ক সুরজিৎ দত্ত।সাতবারের বিধায়ক ছিলেন তিনি। ১৯৮৮ সালে প্রথমবারের মত বিধায়ক নির্বাচিত হয়েই মন্ত্রীও হয়েছিলেন। মাঝে মাত্র ৩৫ ভোটে ২০১৩ সালের নির্বাচনে বামফ্রন্ট প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয়েছিলেন। এরপর ২০১৮ সালে এবং সর্বশেষ ২০২৩ সালে বিজেপি দল থেকে পরপর দুইবারের জন্য বিধায়ক পদে নির্বাচিত হন। রামনগর বিধানসভা এলাকায় একমেব অদ্বিতীয়ম নেতা হিসেবে তার জনপ্রিয়তা ছিল আকাশ ছোঁয়া। শেষ দিন পর্যন্ত তার জনপ্রিয়তায় ভাঁটা পড়েনি। মঙ্গলবার সদ্য প্রয়াত প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিধায়ক সুরজিৎ দত্তের স্মরণসভার আয়োজন করা হয় ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপির উদ্যোগ। আগরতলা রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে আয়োজিত স্মরণ সভায় উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা, বিজেপির প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য, মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, মন্ত্রী প্রনজিৎ সিং রায়, মন্ত্রী রতন লাল নাথ, মন্ত্রী সান্তনা চাকমাসহ রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। স্মরণসভায় সুরজিৎ দত্তকে স্মরণ করতে গিয়ে একাধিক বার আবেগাপ্লুত হতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহাকে। স্মৃতিচারণার সময় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি সুরজিৎ দত্ত নয়, সুনুদা হিসেবেই বেশি পরিচিত ছিলেন।শুধুমাত্র রামনগর নয়,গোটা আগরতলার একটা শক্তির ছিলেন সুরজিৎ দত্ত। তাঁকে যখনই ডাকা হতো অপরের যে কোনো সমস্যায় তিনি ঝাঁপিয়ে পড়তেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিজেপি বলে জনগণের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসম্পর্ক তৈরি করতে। কিন্তু বহুদিন আগেই প্রয়াত দত্ত তা করে গেছেন। জনগণের সঙ্গে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের একটা আত্মিক ভাব বিনিময় সুরজিৎ দত্ত-ই শুরু করেছিলেন এ রাজ্যে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সুরজিত দত্তের চলে যাওয়া দলের একটা বিশাল ক্ষতি। তিনি সমাজের জন্য যা করে গেছেন তা কোনোদিন ভোলার নয়। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এ রাজ্যের প্রকৃত জননেতা একমাত্র সুরজিৎ দত্ত-ই। রাজনৈতিক দলমত নির্বিশেষে গোটা রাজ্যের জনগণ সুরজিৎ দত্তকে ভালবাসতেন। সকলের হৃদয়ে, সবার মাঝে বেঁচে থাকবেন তিনি।এদিকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপি প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য বলেন,দিলখোলা মানুষ ছিলেন সুরজিৎ দত্ত। তাঁর মৃত্যুর খবর পেয়ে প্রয়াতকে শেষ দেখা দেখতে যেভাবে গোটা রাজ্যের মানুষ ভিড় জমিয়েছেন, তা থেকেই প্রমাণিত হয় তিনি প্রকৃত অর্থেই জননেতা ছিলেন।এদিকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আগরতলা পুরো নিগমের মেয়র দীপক মজুমদার বলেন, বিধায়ক হিসেবে জনগণের পাশে থেকে জনগণের জন্য কি কি কাজ করা যায় তা করে দেখিয়েছেন প্রয়াত সুরজিৎ দত্ত। নিজের এলাকা নয়, গোটা রাজ্যের লোকের জন্য তিনি কাজ করে গেছেন। আর একেই প্রকৃত অর্থে জননেতা বলা হয়।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

17 − 11 =

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য