Monday, May 20, 2024
বাড়িখবরশীর্ষ সংবাদঅষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের দ্বিতীয় দফা ভোট পর্বে খোয়াই জেলার ভোট গ্রহণের...

অষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের দ্বিতীয় দফা ভোট পর্বে খোয়াই জেলার ভোট গ্রহণের প্রস্তুতির জানান দিতে জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারের প্রেস মিট।

খোয়াই প্রতিনিধি ২৫শে এপ্রিল…..১৯শে এপ্রিল থেকে শুরু হয়ে গেছে দেশের সবথেকে বড় গণতন্ত্রের উৎসব লোকসভা নির্বাচন।এই অষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফার নির্বাচনি ভোটপর্ব গত ১৯শে এপ্রিল পশ্চিম ত্রিপুরা আসনে সমাপ্ত হয়ে গেছে ।দ্বিতীয় দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে শুক্রবার ২৬ শে এপ্রিল । এই নির্বাচনকে কিভাবে সুষ্ঠু ,সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা সেই বিষয় নিয়ে তথ্য দিতে গিয়ে জেলার নির্বাচন আধিকারিক তথা জেলাশাসক চাঁদনী চন্দ্রন ও জেলা পুলিশ সুপার রমেশ যাদবের উপস্থিতিতে জেলাশাসকের কনফারেন্স হলে এক প্রেস মিটের আয়োজন করা হয় ।বৃহস্পতিবার বিকেলে চার ঘটিকায়। এই প্রেস মিটে জেলাশাসক চাঁদনী চন্দ্রন জানান খোয়াই জেলাতে সর্ব মোট ৩০৭ টি পোলিং স্টেশন রয়েছে এবং বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকেলের মধ্যে প্রত্যেকটি পোলিং স্টেশনে ভোট কর্মীরা নিজ নিজ পলিং স্টেশনে পৌঁছে গেছে।তাতে প্রত্যেকটি পোলিং স্টেশন গুলিতে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। তাছাড়া বর্তমান সময়ে রাজ্যে চলছে প্রচন্ড দাবদাহ এর জন্য প্রত্যেকটি পোলিং স্টেশনে পানীয় জল এবং ও আরএস এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।এবং প্রচন্ড দাবদাহের থেকে বাঁচতে সেখানে বিদ্যুতের ব্যবস্থাও করা হয়েছে যদি কোন ধরনের বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয় তার জন্য ব্রেকআপের ব্যবস্থাও রয়েছে। এছাড়া পলিং স্টেশনের ২০০ মিটারের মধ্যে কোন ধরনের নির্বাচনে অফিস থাকবে না এই বিষয়গুলিকে নিয়ে যদিও এর আগেই সেনিটেশন করা হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে থেকে লাগু হচ্ছে ১৪৪ ধারা যা বলবত থাকবে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত। এই ধরনের আরো অনেক ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং জেলা শাসকের অফিসে সমস্ত নির্বাচনীয় বিষয়গুলি তত্ত্বাবধানের জন্য অনেকগুলি টিভি মনিটর বাসনা হয়েছে এবং একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।তাছাড়া প্রত্যেকটি পোলিং স্টেশনে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তাছাড়া তিনি আরো জানান খোয়াই জেলাতে সর্ব মোট আড়াই লক্ষ ভোটার রয়েছে তার মধ্যে যদিও তৃতীয় লিঙ্গের কোন ভোটার এই কেন্দ্রে নেই বলে জানান জেলাশাসক চাঁদনী চন্দ্রন। পরবর্তীতে প্রেস মিটে জেলা পুলিশ সুপার রমেশ যাদব জানান এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলার প্রত্যেকটি পোলিং স্টেশনে পর্যাপ্ত পরিমাণে আধা সামরিক বাহিনীকে নিয়োগ করা হয়েছে যাতে করে কোন ধরনের দুর্ঘটনা না ঘটে সেদিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নজরদারি করা হচ্ছে।উক্ত প্রেস মিটে জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপার জেলা সমস্ত ভোটারদের প্রতি আহ্বান রাখেন যাতে তারা তাদের মূল্যবান ভোট নির্ভয়ে প্রদান করে। গণদেবতাদের জন্য প্রশাসন কঠোর হাতে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনাকে মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে বলে জানান জেলা পুলিশ সুপার রমেশ যাদব । এই নির্বাচনকে সুস্থ ও সুন্দরভাবে করার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যা যা করার সমস্ত কিছু করে রেখেছেন।তাই ভোটারদের প্রতি আহ্বান রাখেন ওরা যাতে নিশ্চিন্তে ২৬শে এপ্রিল শুক্রবার তাদের পবিত্র ভোট প্রদান করে। মূলত জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসন গণদেবতাদের ভোট প্রদানে কোন ধরনের অসুবিধা সম্মুখীন না হতে হয় তার জন্য যথাযোগ্য ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। এখন দেখার বিষয় এত সমস্ত ব্যবস্থা গ্রহণের পরও গণ দেবতারা শতাংশ হারে ভোট প্রদানে অন্যান্য জেলা থেকে কতটুকু এগিয়ে এবং পিছিয়ে থাকে।অন্যদিকে জেলা শাসক চান্দনি চন্দ্রন সমস্ত জেলা বাসি ও সাংবাদিক বন্ধুদের কাছে অনুরোধ রাখেন যাতে করে কোন ধরনের গুজবে কান না দেয় ।এবং কোন ধরনের গুজব যদি শুনতে পাওয়া যায় তার জন্য প্রশাসনের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ রাখেন জেলাশাসক।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য