Tuesday, July 23, 2024
বাড়িখবররাজ্যমিধিলি ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সাহায্য প্রদান করা হলো

মিধিলি ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সাহায্য প্রদান করা হলো

গ্রাম ,গরিব এবং কৃষক এই তিনটি ক্ষেত্রকে প্রাধান্য দিয়েই সরকার কাজ করছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় বিপর্যয় ত্রাণ তহবিল প্রকল্পে সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করে এই কথা জানান রাজ্যের কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী রতন লাল নাথ ।এদিন রাজ্যের ৩৯ টি এগ্রি সাব-ডিভিশনে মোট ৭৮ হাজার ২৭৯ জন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মোট ২১ কোটি ৯৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।২০২৩ সালের ২৭ এবং ২৮ নভেম্বর রাজ্যের উপর দিয়ে সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় মিধিলি বয়ে যায় ।ঘূর্ণিঝড় মিধিলির প্রকোপে রাজ্যে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবি জানান ।সরকার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেয়। শুরু হয় প্রশাসনিক উদ্যোগে কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতির হিসেব পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনা। প্রশাসনের পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনায় প্রাকৃতিক দুর্যোগ মিধিলিতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সংখ্যা নিরূপণ করা হয়। বৃহস্পতিবার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয় ।এই উপলক্ষে রাজ্যের ৪৭ টি অগ্রি সাব ডিভিশনের মধ্যে ৩৯ টি এগ্রি সাব ডিভিশনে পৃথক পৃথক ভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।এর মূল অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয় রাজধানীর নজরুল কলা ক্ষেত্রে ।এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের কৃষি ও কৃষক কল্যান মন্ত্রী রতনলাল নাথ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক রতন চক্রবর্তী, আগরতলা পৌর নিগমের মেয়র তথা বিধায়ক দীপক মজুমদার ,পশ্চিম জেলার জিলা পরিষদের সভাধিপতি হরিদুলাল আচার্য সহ কৃষি ও কৃষক কল্যাণ দপ্তরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা ।এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী রতনলাল নাথ জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মিধিলির কারণে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের বিরাট সংখ্যক কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে বৃহস্পতিবার ৩৯ টি এগ্রি সাব ডিভিশনে অনুষ্ঠান করে মোট ৭৮হাজার ২৭৯ জন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষককে আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হচ্ছে ।এই ক্ষেত্রে মোট অর্থ রাশির পরিমাণ ২১ কোটি ৯৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা ।আগামী ১০ দিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর ফসল বীমা যোজনায় আরো ৩ হাজার ১৩ জন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মোট ১ কোটি ১৩ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে বলে জানান তিনি। মন্ত্রী আরো জানান, হটিকালচার এবং এগ্রিকালচার দপ্তরের যৌথ উদ্যোগে এই আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে ।এদিন কৃষিমন্ত্রী আরো জানান ,রাজ্য সরকারের লক্ষ্য আত্মনির্ভর ত্রিপুরা, সয়ম্ভর ত্রিপুরা ও এক ত্রিপুরা শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরা ।এই ক্ষেত্রে সরকার গ্রাম ,গরিব ও কৃষকদের প্রাধান্য দিয়ে কাজ করে চলছে।অনুষ্ঠানে কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী রতনলাল নাথ বলেন ,কৃষকরা হলো দেশ ও রাজ্যের অন্নদাতা ।রাজ্যে ৪২ লক্ষ্য জনগণের মধ্যে ৪ লক্ষ ৭২ হাজার মানুষ কৃষক। সারা দেশে কৃষক পরিবারের সংখ্যা ২০ কোটি ।এরাই দেশের ১৪০ কোটি মানুষের খাদ্যের যোগান দিচ্ছেন ।এই কারণেই কৃষকদের কল্যাণকে প্রাধান্য দিয়ে কাজ করে চলছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ।এর আগে অন্য কোন প্রধানমন্ত্রীকে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে এত গুরুত্ব প্রদান করতে দেখা যায়নি ।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

eight − seven =

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য