Tuesday, February 27, 2024
বাড়িখবররাজ্যছেলের মৃত্যুর পর, এবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বাবারও

ছেলের মৃত্যুর পর, এবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বাবারও

গত ৯ই ডিসেম্বর শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের নিমন্ত্রনে বেরিয়ে বাড়িতে ফেরা হলো না ছেলে এবং ছেলের পিতার। ছেলের ঠাই হলো বিলোনীয়া হাসপাতালের মর্গে, আর পিতার ঠাই হলো আগরতলা জিবি হাসপাতালের বেডে। এই হৃদয় বিদারক ঘটনাটি ঘটে বিলোনিয়া বড়পাথরী গর্জনিয়া বিএসএফ ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকায়। জানা গিয়েছে বিলোনিয়া ভারত চন্দ্র ব্লকের উত্তর কলাবাড়িয়া গ্ৰাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা উত্তম পাল।উনার মায়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠান আগামী ১৩ই ডিসেম্বর অর্থাৎ বুধবার। উত্তম পাল শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের নিমন্ত্রনের জন্য সাত বছরের ছেলে জয়দীপকে বাইকে বসিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। নিমন্ত্রন সেরে বাইক চেপে বড়পাথরী গর্জনিয়া বিএসএফ ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকায় আসতেই একটি গাড়ীকে ওভার টেক করতে গিয়ে, বিলোনিয়ার দিক থেকে আসা জেলা শাসকের গাড়ির সাথে সজোরে ধাক্কা খায়। এই ধাক্কায় বাইক চালক উত্তম পাল এবং বাইকের পেছনে বসা ছেলে জয়দীপ পাল ছিটকে পড়ে যায়। এরফলে ছেলে জয়দীপ পালের মাথা থেতলে যায় ও উত্তম পাল গুরুত্বতর আহত হয়। সাথে সাথে দক্ষিণ জেলা শাসকের নির্দেশে স্কট গাড়ি করে, আহতদের নিয়ে আসা হয় বিলোনিয়া হাসপাতালে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক উত্তম পালের ছেলে জয়দেব পালকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর মৃত বলে ঘোষণা করেন । পাশাপাশি আহত উত্তম পালকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর আগরতলা জিবি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে দেন। অবশেষে ছেলের মৃত্যুর পর বাবাও মঙ্গলবার পাড়ি দিলেন না ফেরার দেশে। এদিন সংবাদ মাধ্যমের সামনে মৃতের নিকট আত্মীয় মৃত উত্তম পালের পারিবারিক অবস্থা তুলে ধরেন এবং আশা রাখছেন জেলা শাসক সাহেব যার গাড়ির সাথে ধাক্কা খেয়ে একটি পরিবারের উপার্জনের পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছে সে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবে বলে এবং যদি না দেয় তাহলে আগামীদিনে আইনি পথে যাওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া বিরাজ করছে।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য