Wednesday, February 28, 2024
বাড়িখবররাজ্যরাজ্যের ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট দাবি নিয়ে ধারাবাহিক আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত রাখল বামপন্থী দুই...

রাজ্যের ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট দাবি নিয়ে ধারাবাহিক আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত রাখল বামপন্থী দুই ছাত্র সংগঠন এসএফআই ও টিএসইউ

কেন্দ্রীয় সরকারের জাতীয় নয়া শিক্ষা নীতি রাজ্য সরকারও ক্রমশ কার্যকর করতে চলেছে। তারই প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে রাজ্য সরকার শতাধিক বাংলা মিডিয়াম স্কুলকে বিদ্যাজ্যোতি প্রকল্পের নামে ইংরেজি মিডিয়ামে পরিণত করে। ঘটা করে এই প্রকল্প রাজ্যে চালু করার পর প্রথমদিকে তার কুফল কিংবা সুফল ছাত্র-ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকরা বুঝতে না পারলেও, এখন যেন তা উপলব্ধি করতে পারছেন। বিশেষ করে যেভাবে মোটা অংকের ফি ধার্য করা হচ্ছে ছাত্রছাত্রীদের, তাতে করে উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা। বিদ্যাজ্যোতি প্রকল্পের স্কুলগুলিতে মোটা অংকের ফি নিয়ে ইতিমধ্যেই সোচ্চার বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনগুলি। অভিযোগ রাজ্যের শিক্ষাকে বেসরকারিকরণ ও বাণিজ্যিককরণের দিকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে রাজ্য সরকার। এরকমই অভিযোগ এনে সরকারি শিক্ষা বাঁচাও স্লোগান তুলে রাজ্যের স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট চার দফা দাবিকে সামনে রেখে ফের আরো একবার রাস্তায় নামল বামপন্থী দুই ছাত্র সংগঠন এসএফআই ও টিএসইউ। শনিবার সংগঠন দুটির উদ্যোগে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সংঘটিত হয় শিক্ষা ভবন অভিযান। এদিন আগরতলা মেলারমাঠ স্থিত ছাত্র যুব ভবন থেকে দাবিগুলিকে সামনে রেখে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতিবাদ মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমার শেষে শিক্ষা ভবনের সামনে গিয়ে মিলিত হয়। সেখানে দাবিগুলি সমর্থনে বিক্ষোভ দেখায় ছাত্রছাত্রীরা। পরে এসএফআই রাজ্য সম্পাদক সন্দীপন দেব ও টিএসইউর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুজিত ত্রিপুরার নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকের সাথে মিলিত হয়ে তাদের দাবি তুলে দেন। এদিনের এই কর্মসূচি প্রসঙ্গে এসএফআই রাজ্য সম্পাদক সন্দীপন দেব বলেন, শিক্ষাকে বেসরকারিকরণের মাধ্যমে বাণিজ্যিকীকরণের রাস্তা সুগম করতে চাইছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের স্কুল কলেজগুলিতে রয়েছে শিক্ষকের সংকট। স্কুল-কলেজে ফি বৃদ্ধি করে ছাত্র-ছাত্রীদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। তার মধ্যে আবার বৈষম্য মূলক শিক্ষা নীতি রাজ্যে চালু করার চেষ্টা। বিদ্যাজ্যোতির নাম করে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থাকে দুই ভাগে ভাগ করার চেষ্টা হয়েছে। এর বিরুদ্ধে ধারাবাহিক সংগ্রাম যেমন চলছে, তেমনি আগামী দিনেও এই লড়াই সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য