Sunday, April 21, 2024
বাড়িখবররাজ্যপ্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই জনজাতিদের উন্নয়ন সম্ভব - মুখ্যমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই জনজাতিদের উন্নয়ন সম্ভব – মুখ্যমন্ত্রী

সকলেই বুঝতে পারছেন একমাত্র প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই জনজাতিদের উন্নয়ন সম্ভব। তাই সকলেই এখন বিজেপির সঙ্গে মিলেমিশে একাকার হয়ে গেছে। শনিবার জনজাতি মোর্চার উদ্যোগে আয়োজিত জনজাতি কার্যকর্তা সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিপ্রা মথা সুপ্রিমো প্রদ্যোৎ কিশোর দেববর্মনকে পাশে বসিয়ে এমনটাই মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর ডাঃ মানিক সাহা। এদিকে সিপিআইএম দলকে বিভেদকামী পার্টি বলে আখ্যা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,জাতি-জনজাতির মধ্যে বিভেদ করা-ই হলো তাদের কাজ। শনিবার জনজাতি মোর্চার উদ্যোগে রাজধানীর টাউন হলে আয়োজন করা হয় জনজাতি কার্যকর্তা সম্মেলনের। সম্মেলন শুরুর আগে রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবন থেকে এক বর্ণাঢ্য সুদীর্ঘ শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয় মোর্চার পক্ষ থেকে। শোভাযাত্রাটি দৃপ্ত পায়ে শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করে টাউন হলে গিয়ে মিলিত হয়। সেখানেই আয়োজন করা হয় কার্যকর্তা সম্মেলনের। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য, জনজাতি মোর্চার প্রদেশ সভাপতি পরিমল দেববর্মা,মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর ডাঃ মানিক সাহা, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্তমান লোকসভা পশ্চিম আসনের প্রার্থী বিপ্লব কুমার দেব, পূর্ব আসনের প্রার্থী কৃতি সিং দেববর্মণ, তিপ্রা মথা সুপ্রিমো প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মন, মন্ত্রী বিকাশ দেববর্মাসহ অন্যান্যরা। সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর ডাঃ মানিক সাহা বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যতক্ষণ না উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নতি হবে ততক্ষণ দেশের উন্নয়ন হবে না। এরমধ্যে আমার সংযোজন, যতক্ষণ না জনজাতিদের উন্নয়ন হবে ততক্ষণ ত্রিপুরার উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি বলেন, জনজাতিদের উন্নয়নে বিজেপি ব্যাপক কাজ করেছে। দেশের রাষ্ট্রপতি এখন জনজাতিভুক্ত সম্প্রদায়ের। রাজ্যে ব্রু শরণার্থীদের সমস্যার সমাধান করেছে বিজেপি সরকার। ইতিপূর্বে বিজেপির সঙ্গে আইপিএফটি জোট করে সরকার গঠন করেছে। বর্তমানে তিপ্রা মথা চলে এসেছে বিজেপির সঙ্গে। অর্থাৎ সকলেই বুঝতে পারছেন একমাত্র প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই জনজাতিদের উন্নয়ন সম্ভব। তিনি বলেন, এখন সব মানুষের একাকার হয়ে গেছে। বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী সিপিআইএম দল তথা বাম আমলের সমালোচনায় মুখর হয়ে সিপিআইএমকে বিভেদকামী দল বলে আখ্যা দেন। তিনি বলেন, উন্নয়নমূলক কোনো চিন্তাভাবনা ছিল না তাদের মধ্যে। শ্রমিক এবং মালিকদের পাশাপাশি,জাতি এবং জনজাতিদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা-ই ছিল তাদের কাজ। কোনো ধরনের উন্নয়নমূলক চিন্তাভাবনা ছিল না তাদের। মুখ্যমন্ত্রী বলেন,তিপ্রা মথার সঙ্গে একাধিক বার জোট করার চেষ্টা করেছে তারা। কিন্তু বর্তমানে যখন রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হয়েছে তখন তিপ্রা মথার বিরুদ্ধে বলতে শুরু করেছে। ত্রিপুরার পূর্ব এবং পশ্চিম দুটো আসনেই বিজেপির জয় নিশ্চিত বলে আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা যায় মুখ্যমন্ত্রী গলায়।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য