Friday, June 14, 2024
বাড়িখবররাজ্যএম বি বি কলেজে নবীন বরণ উৎসবে মুখ্যমন্ত্রী

এম বি বি কলেজে নবীন বরণ উৎসবে মুখ্যমন্ত্রী

এক ত্রিপুরা শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরার শপথ নিতে কলেজ পড়ুয়াদের আহ্বান মুখ্যমন্ত্রীর।সোমবার আগরতলায় এম বি বি কলেজের নবীনবরন উৎসবে অংশ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা এই কথা বলেন।সোমবার ছিল এম বি বি কলেজের নবীন বরণ উৎসব। রাজধানীর এম বি বি কলেজের নবীন বরণ উৎসব হয় রবীন্দ্রভবনে। উৎসবের প্রধান অতিথি ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা। নবীন বরণ উৎসবের উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা নতুন কলেজ শিক্ষায় আসা পড়ুয়াদের প্রতি আহ্বান রেখে বলেন, এম বি বি কলেজ রাজ্যের অত্যন্ত গর্বের। এই কলেজ রাজ্যবাসীকে উপহার দিয়েছে বহু কৃতী ও গুণীজনদের। এর প্রবাহমান ধারা যেন অক্ষুন্ন থাকে তাঁর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী কলেজের অতীত ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, এম বি বি কলেজের পড়াশোনা করতে পেরে অনেকের সঙ্গে আমি নিজেও গর্বিত। কলেজের গোড়াপত্তনের ইতিহাস তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, শিক্ষা বিস্তারে এই রাজ্যের রাজ পরিবারের ভুমিকা ছিল সবচেয়ে বেশী। ১৯০১ সালে রাধা কিশোর মানিক্য বাহাদুরের হাত ধরে এই কলেজের সূচনা হয়। ধাপে ধাপে নতুন কলেবরে পল্লবিত হয়েছে আজকের এই এম বিবি কলেজের। আধুনিক ত্রিপুরার প্রকৃত জনক ছিলেন মহারাজা বীরবিক্রম কিশোর মানিক্য। রাজ্যের শিক্ষা বিস্তারের ক্ষেত্রে বর্তমান রাজ্য সরকারের বহুবিধ উদ্যোগের কথা তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিচ্ছে শিক্ষাকে। শিক্ষা ব্যবস্থায় একটা আমূল পরিবর্তন এসেছে। অতীতের তুলনায় এখন শিক্ষা ব্যবস্থা অনেক বেশী শক্তিশালী হয়েছে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। ৩৩ বছর পর দেশে চালু হয়েছে নয়া জাতীয় শিক্ষা নীতি। রাজ্যেও নয়া শিক্ষানীতি চালু করেছে রাজ্য সরকার।এম বি বি কলেজে মানোন্নয়নে রাজ্য সরকারের উন্নয়নমূলক পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্যে আধুনিক বিজ্ঞান ভবন গড়ে তোলার জন্য সরকার ৭৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। যার কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। এম বিবি কলেজের পুরোনো রাস্তা সংস্কার থেকে শুরু করে কলেজের বিজ্ঞান ভবনকে আধুনিক ভাবে গড়ে তুলতে রাজ্য সরকার বরাদ্দ করেছে ৬০ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। হেরিটেজ বিল্ডিং সংস্কারের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ৩৫০ কোটি টাকা। মুখ্যমন্ত্রী এদিন শিক্ষা ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের দৃষ্টিভঙ্গী ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেন, উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের কল্যানে রাজ্য সরকার আর্থিক সাহায্য করতে বেশ কিছু প্রকল্প চালু করেছে। এর মধ্যে লক্ষ্য প্রকল্পে এখন পর্যন্ত চারজন পড়ুয়াকে ৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। বি এড পড়ুয়াদের জন্য চালু রয়েছে বি এড অনুপ্রেরনা যোজনা। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এখন রাজ্যে রয়েছে শিক্ষা বান্ধব পরিবেশ। এই পরিবেশকে কাজে লাগিয়ে পড়ুয়াদের নতুন দিশায় এগিয়ে যাওয়ার পড়ামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী।নবীন বরন উৎসবে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আগরতলা পুর নিগমের মেয়র দীপক মজুমদার। বিজেপি প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য