Tuesday, February 27, 2024
বাড়িখবররাজ্যআগরতলার একটি নার্সিং হোম কর্তিপক্ষের বিরুদ্ধে রিপোর্ট প্রদানে হয়রানির অভিযোগ

আগরতলার একটি নার্সিং হোম কর্তিপক্ষের বিরুদ্ধে রিপোর্ট প্রদানে হয়রানির অভিযোগ

আগরতলা শহরের অলিতে গলিতে ব্যাংয়ের ছাতার মত ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বিভিন্ন ছোট বড় অবশ্যই বেসরকারি নার্সিং হোম। এই নার্সিং হোম গুলিতে বিভিন্ন রোগীরা ছুটে যায় বিশেষ করে যত্নের সাথে চিকিৎসা পরিষেবা পেয়ে দ্রুত আরোগ্য লাভ করবে এই ভেবে। কিন্তু অনেক সময় এই ধরনের নার্সিং হোমে কথা অনুযায়ী যথোপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা না পাবার অভিযোগ এবং নার্সিং হোম কর্তিপক্ষের বিরুদ্ধে রোগী পক্ষকে অযথা হয়রানির অভিযোগও সামনে আসে। অনেক সময় বিভিন্ন নার্সিং হোমের বিরুদ্ধে বেআইনি কার্যকলাপেরও অভিযোগ সামনে আসে। মঙ্গলবারও এমন অভিযোগ সামনে আসতে শুরু করেছে আগরতলার নাইটএঙ্গেল নার্সিং হোম কর্তিপক্ষের বিরুদ্ধে। জানা যায় জনৈক রোগীর পরিবার গত ৭ অক্টোবর এই নার্সিং হোমে একটি অপারেশন করিয়েছিলেন। কিন্তু এর পর রোগীর অবস্থা আরও খারাপ হওয়ায় তারা সেখান থেকে রোগীকে দ্রুত আরোগ্য লাভের জন্য বহিঃ রাজ্যে নিয়ে যায়। এরই মধ্যে রোগীর বায়োপ্সি পরীক্ষা করার জন্য এখান থেকে স্যাম্পল বাইরে পাঠানো হয়। রোগীর কর্কট রোগে আক্রান্ত হবার কথা আশংকা করা হয়। এরই মধ্যে বহিঃ রাজ্যে রোগীর অবস্থা আরও গুরুতর হচ্ছে। অথচ নির্দিষ্ট রিপোর্ট না পেলে রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে গেলে সেই রিপোর্ট চাওয়া হচ্ছে যা এই নার্সিং হোম থেকে বাইরে পাঠানো হয়েছে। রোগী পক্ষের অভিযোগ নার্সিং হোমে প্রতিদিন যোগাযোগ করা হলেও তারা আজ না কাল করে করে এই ভাবে প্রায় ২১ দিন অতিক্রান্ত করেছে। এমন কি তারা এই ব্যাপারে দায়সারা ভাবে তাদেরকে জবাব দিচ্ছে এবং এ ব্যপারে তারা কিছু করতে পারবে না বলে জানাচ্ছে। এদিকে দিনের পর দিন রিপোর্টের জন্য রোগীকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করানো যাচ্ছে না। এই অবস্থায় রোগীর অবস্থা আরও সংকটাপন্ন হয়ে উঠছে বলে জানায় রোগীর পরিবারের জনৈক সদস্য। সুতরাং যেখানে দফতরের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় লাইসেন্স নিয়ে চিকিৎসা পরিষেবা দেবার জন্য এই বেসরকারি নার্সিং হোম গুলি দায়বদ্ধ সেখানে এই ধরনের অভিযোগ যখন সামনে আসে নিশ্চয়ই এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া দরকার সংশ্লিষ্ট কর্তিপক্ষের। এমনটাই মনে করছে সচেতন মহল। নতুবা এই ভাবে লাইসেন্স নিয়ে রোগীর জীবনের সাথে ছিনি মিনি খেলা কতদূর যুক্তিসঙ্গত এই প্রশ্নও সামনে আসতে শুরু করেছে। রোগীর জীবন নিয়ে ছিনি মিনি খেলা এই ধরনের নার্সিং হোমগুলির মর্জিমাফিক কার্যকলাপের বিরুদ্ধে লাগাম টানা অবশ্যই দরকার বলেও মনে করছে বিভিন্ন মহল। দেখার বিষয় এই ধরনের কার্যকলাপের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় কি না। সে দিকেই তাকিয়ে সচেতন মহল। এমন কি নার্সিং হোমগুলিতে কর্তিপক্ষের তরফে অভিযান চালানোর সাথে সাথে জনগণের পরিষেবা কতটা সঠিক ভাবে প্রদান করা হচ্ছে সে ব্যাপারেও সর্বক্ষন নজরদারি চালানো দরকার বলে মনে করছে সচেতন মহল। পাশাপাশি অভিযোগ পাওয়া মাত্রই সাথে সাথে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে এক্ষেত্রে অনেকটা লাগাম টানা সম্ভব বলেও মনে করছে সচেতন নাগরিকরা।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য