Monday, March 4, 2024
বাড়িখবররাজ্যপরিবহণ দপ্তরের পরিষেবাকে জনমুখী করতে রোড ম্যাপ তৈরী করতে হবে : পরিবহণ...

পরিবহণ দপ্তরের পরিষেবাকে জনমুখী করতে রোড ম্যাপ তৈরী করতে হবে : পরিবহণ মন্ত্ৰী

পরিবহণ দপ্তরের পরিষেবাকে আরও জনমুখী করতে রোড ম্যাপ তৈরী করে কাজ করতে হবে। কেননা বিগত দিনের পরিবহণ ব্যবস্থা ও আজকের দিনের পরিবহণ ব্যবস্থার মধ্যে রাত দিন ফারাক রয়েছে। পরিবহণ ব্যবস্থাকে আরও দ্রুত ও আধুনিক রূপ দিতে পরিবহণ দপ্তরকে নতুন নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে কাজ করতে হবে। পরিবহণ মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী আজ গীতাঞ্জলি অতিথি নিবাসের কনফারেন্স হলে পরিবহণ দপ্তরের এক পর্যালোচনাসভায় একথাগুলো বলেন। সভায় পরিবহণ দপ্তরের সচিব উত্তম কুমার চাকমা, পরিবহণ কমিশনার সুব্রত চৌধুরী, এমবিবি বিমানবন্দরের অধিকর্তা কে সি মীনা, উত্তর পূর্বাঞ্চল রেলওয়ের এরিয়া ম্যানেজার টি কুমার, এআইজিপি জ্যোতিষ্মান চৌধুরী, ট্রাফিক সুপার আর দার্লং, পর্যটন দপ্তরের অধিকর্তা তপন কুমার দাস, পূর্ত দপ্তরের মুখ্য বাস্তুকার (আর এন্ড বি) রাজীব দেববর্মা, মৎস্য দপ্তরের অধিকর্তা মুসলেম উদ্দীন আহমেদ টিআরটিসি-র এম ডি সজল বিশ্বাস ছাড়াও জেলা ও মহকুমা পরিবহণ দপ্তরের আধিকারিক, চিফ ভ্যাহিক্যাল ইন্সপেক্টর, সিনিয়র ভ্যাহিক্যাল ইন্সপেক্টর, ভ্যাহিক্যাল ইন্সপেক্টর ও অন্যান্য দপ্তরের আধিকারিকগণ উপস্থিত ছিলেন। পর্যালোচনা সভায় আকাশপথ, রেলপথ, সড়কপথ ও জলপথ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। পর্যালোচনা সভায় পরিবহণ মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন, আগামীদিনে আগরতলা চিটাগাঙের মধ্যে বিমান পরিষেবা চালু করা হবে। স্পাইসজেট এর দায়িত্ব পেয়েছে। তিনি বলেন, এই সরকার জনগণের সরকার। এ সরকার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসার (ডা.) মানিক সাহার পথ ধরে এগিয়ে চলেছে। রাজ্য সরকার সর্বত্র পরিবহণ ব্যবস্থার সুযোগ পৌঁছে দেবার উদ্যোগ নিয়েছে। টিআরটিসি এক মাসের মধ্যে পিক বাস চালু করবে। এতে মহিলা যাত্রীদের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ ছাড় থাকবে। সভায় পরিবহণ মন্ত্রী বলেন, মাতাবাড়ি, নারকেলকুঞ্জ এবং ভাংমুনে ৩টি হ্যালিপোর্ট নির্মাণ করা হবে। এজন্য দপ্তরকে ডিপিআর তৈরী করতে হবে। তিনি বলেন, রাজ্যে ৫২টি মোটর স্ট্যান্ড রয়েছে সেগুলিকে আধুনিকিকরণে সরকারের চিন্তাভাবনা রয়েছে। যান দুর্ঘটনা রোধে আরও পদক্ষেপ নিতে হবে। তিনি বলেন, গত অর্থবছরে পরিবহণ দপ্তর বিভিন্ন খাতে মোট ১১৫কোটি ৬৪ লক্ষ টাকা রাজস্ব সংগ্রহ করেছে। চলতি ২০২৩-২৪ অর্থ বছরে এই দপ্তর ১২১ কোটি ৪১ লক্ষ টাকা রাজস্ব সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। সভায় পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশানের মাধ্যমে আলোচনার সূচনা করেন পরিবহণ দপ্তরের সচিব উত্তম কুমার চাকমা। তিনি বিমানপথ, রেলপথ, জলপথ ও সড়কপথের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। এছাড়া তিনি আগরতলা আখাউড়া রেলপথ, ৯টি ফ্লোটিং টার্মিনালস, ইন্টিগ্রেটেড রোড অ্যাক্সিডেন্ট ডাটা বেইস, গোমতী নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি, ইনস্টিটিউট অব ড্রাইভিং, ট্রেনিং এন্ড রিসার্চ, ট্র্যান্সপোর্ট কমিশনারেট, হ্যালিকপ্টার সার্ভিস, হীরাছড়ায় গ্রিণ ফিল্ড এয়ারপোর্ট, প্রি পেইড অটো/ ট্যাক্সি ভাড়া, ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টার, এনফোর্সমেন্ট ড্রাইভ, ইন্সপেকশন এন্ড সার্টিফিকেশন, টিআরটিসি বাস ও ত্রিপুরা আরবান ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন লিমিটেডের বাস পরিষেবা নিয়ে আলোচনা করেন।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য